মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

মুক্তিযুদ্ধে সোনাগাজী

  সোনাগাজী খানায় ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে পাক বাহীনি ও রাজাকার বাহীনীর সাথে সম্মুখ যুদ্ধের বিস্তারিত বিবরণ

 

 

১।  আগষ্ট ১৯৭১ পাকবাহিনী ২ও রাজাকারের সাথে ৯নং নবাবপুর  ইউনিয়নের নবাবপুর বাজার সড়কে ইসমাঈল কেরানীর বাড়ীর প্রায় ৭০০ গজ পশ্বিমে ২০০শত পাক বাহীনি ও রাজা কার বাহিনী কেম্প স্থাপনের জন্য নবাবপুর আসার পথে প্রায় ২ ঘন্টা যাবৎ সম্মুখ যুদ্ধ ।বি এল এফ কমান্ড়ার সৈয়দ নাছির উদ্দিন ও এফ এফ কমান্ডার সোবেদার কাশেম উক্ত যুদ্ধে কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। 

 

২।  সেপ্টম্বর ১৯৭১ সালে ৪নং মতিগঞ্জ  ইউনিয়নের সি ও ডেভ অফিসে পাকবাহিনী ও রাজাকার কেম্পে কেম্প দখলের জন্য বি এল এফ কমান্ডার সৈয়দ নাছির উদ্দিন.এফ এফ কমান্ডার সাহ জাহান ও গেরিলা ইউনিট কমান্ডার আবদুল কাইয়ুম যোথ কমান্ডে ঝটিকা আক্রমন করে ২ ঘন্টা তুমুল যুদ্ধ করে ক্যম্প দখল করে।  

 

৩।  আক্টবর ১৯৭১সালে মতিগঞ্জ ইউনিয়নের আন্তর গত বাধাদিয়া আবদুল মান্নান মাদ্রাসা রাজাকার ক্যম্প আক্রমন করে ৪ ঘন্টা যুদ্দের পর সাময়িক দখল করা হয়।একই মাসে আমিরা বাদ ইউনিয়নের বাদাম তলি রসিদ মেম্বারের বাড়ির দরজায় মুক্তি যোদ্ধা ক্যম্প আক্রমন করলে সেখানে ও পাক বাহিনীর সাথে যুদ্ধ করা হয়।

 

৪।  অক্টবরে ১৯৭১ সালে সোনাগাজী থানা পাকবাহিনী ক্যাম্প দখলের জন্য ৪ ঘন্টা পযন্ত যুদ্ধ করে সৈয়দ নাছির উদ্দিন কমান্ডার. এফ এফ শাহজাহার এবং গেরিলা ইউনিট কমান্ডার আবদুল কাইয়ুমের নের্তৃত্বে দখল করা হয়।

৫।  নভেম্বর ১৯৭১ সালে পাক বাহিনী পুনরায় থানায় আক্রমন করলে সৈয়দ নাছির উদ্দিনের নের্তৃত্বে তা মুক্তি যোদ্ধদের দখলে নেওয়া হয়।

 

৬।  নভেম্বর  ১৯৭১ সালে ৩নং মঙ্গল কান্ধি ইউনিয়নের বক্তারমুন্সি বাজারে রাজাকার ক্যাম্প আক্রমন করে প্রায় ১২ ঘন্ট‍া যুদ্ধের পর ক্যাম্প দখল করে নেওয়া হয়।